Shadow

গণতন্ত্র

গণতন্ত্র

গণতন্ত্র
গণতন্ত্র

গণতন্ত্র অর্থ হলো জনগণের দ্বারা নির্বাচিত সরকার ব্যবস্থা । এই পদ্ধতিতে জনগণই সকল ক্ষমতার উৎসজনগণের ভোটে

সরকার নর্বাচিত হয় বলে দেশের সকল ক্ষমতা জনগণের হাতেই থাকে । জনগণ যাকে চাইবে তাকেই সরকার বানাতে পারবে।

এর ফলে সরকার সুস্থ ভাবে দেশ পরিচালনা করে থাকে । কেননা সরকার যদি কোন ভুল করে এবং এতে জনগণ ক্ষিপ্ত হয়ে গেলে

যে কোন সময় সককার পরিবর্তন করতে পারে , বা পরের বার নিজেদের সুবিধা মতন অন্য সরকার নির্বাচিত করতে পারে ।

গণতন্ত্র

গণতন্ত্র
গণতন্ত্র

গণতন্ত্র একটা দেশে কেন প্রয়োজনঃ-

একটা দেশ সুস্থ্য সুন্দর ভাবে পরিচালনার জন্য গণতন্ত্র থাকাটা অনেক বেশি জরুরী । কেন না এতে সকল ক্ষমতা জনগণের

হাতে থাকে । এতে করে সংখ্যাগরিষ্ঠ লোকের ভোটে একটি সরকার নির্বাচিত হয় । সংখ্যাগরিষ্ঠ লোক যাকে ভালো মনে করেন

তাকে সরকার বানিয়ে থাকে । সেই সরকার তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী কাজ করার চেষ্টা করে । যদি কোন ভাবে জনগণের

বিপক্ষে কাজ করার চেষ্টা করে বা করে থাকে তবে জনগণ তাদের ক্ষমতা কেড়ে নেয়ার শক্তি রাখে । এতে করে পরের নির্বাচনে

অন্য সরকার গঠন করার সুযোগ থাকে ।বা চাইলেই তারা অন্য কোন সরকার গঠন করতে পারে ।

গণতত্রের কিছু সুবিধা নিম্মে তুলে ধরা হলোঃ-

১। এই পদ্ধতিতে গঠিত সরকার ,জনগনের সরকার। তাই জনগণের সবার্থে কাজ করে এই সরকার ।

২। এই সরকার কোন ভুল করলে নতুন সরকার গঠন করার সুযোগ থাকে ।

৩। সকল ক্ষমতা জনগনের হাতে থাকায় এই ব্যবস্থায় গঠিত সরকার সব সময় নিজের দেশের কল্যানে কাজ করে থাকে ।

গণতন্ত্র

গণতন্ত্র
গণতন্ত্র

গণতন্ত্র না থাকার অসুবিধাঃ-

যে সকল দেশে গণতন্ত্র নেই ,সেই সকলদেশে সরকার ব্যবস্থা সাধারণত অন্যকোন ভাবে হয়ে থাকে । যেমন একনায়ক তন্ত্র,

রাজতন্ত্র। এই সব সরকার ব্যবস্থায় সাধারণত পারিবারিক ভাবে হয়ে থাকে । অর্থাৎ রাজার ছেলে রাজা,বিষয়টা এমন।

গণতন্ত্র

এই পদ্ধতিতে কিছু সমস্যা হয়ে থাকে ,তা নিম্মে উল্ল্যেখ করা হলঃ-

১। গনতন্ত্র থাকে না বলে জনগণ নিজের মতামত দিতে পারে না ।

২। শাসক নিজের ইচ্ছা মতন শাসন কাজ পরিচালিত করতে পারে ।

৩। জনগণের অধিকার ক্ষুন্ন হয় ।

৪। শাসক কোন ভুল করলেও জনগণ শাসক পরিবর্তন করতে পারে না ।

৫। অনেক সময় জনগণের মৌলিক চাহিদাগূলো নষ্ট হয়ে যায় ।

গণতন্ত্রের দিক দিয়ে বাংলাদেশ কেমনঃ

বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র। এই দেশের সরকার ব্যবস্থা মূলত জনগণের দ্বারায় নির্বাচিত হয় । এই দেশের সরকারের একটি

নির্দিষ্ট সময় থাকে । প্রতি পাঁচ বছর পর পর জনগণের ভোটে  সরকার নির্বাচিত হয় । জনগণ যাকে যোগ্য প্রার্থি মনে করেন

তাকেই ভোট দিয়ে সরকার নির্বাচন করে থাকে । যার ফলে সুস্থ ও নিরাপক্ষ সরকার নির্বাচিত হয় । এবং সেই সরকার দেশের

কল্যাণে কাজ করে থাকে । দেশের প্রতিটি মানুষের মৌলিক অধিকার ,মানবাধিকার নিশ্চিত করে থাকে । এবং জনগণও তাদের

যোগ্য প্রার্থী নির্বাচন করতে পারে । তাদের মতামত প্রকাশ করতে পারে । এবং সরকার তাদের বিপক্ষে  কাজ করলে সেটাও

পরিবর্তন করার ক্ষমতা রাখে ।

গণতন্ত্র

গণতন্ত্র
গণতন্ত্র

বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক দেশ হলেও অনেক সময় সঠিক ভাবে গণতন্ত্র প্রয়োগ হয় না ।কারণ বাংলাদেশের মানুষ কিছুটা অসেচেতন

। তাই ভোটের সময় অনেকেই সুযোগের ব্যবহার করে থাকে । এতে করে একজনের ভোটাধিকার খর্ব হয়ে যায় । তাই বাংলাদেশে

সঠিক গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য কিছু পদক্ষেপ নেয়া অনেক জরুরী।নিম্মে এমন কয়েকটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করা  হলঃ –

গণতন্ত্র

গণতন্ত্র সম্পর্কে সঠিক ধারণা দেয়াঃ গণতন্ত্রে কী এবং কেন প্রয়োজন এইটা সকলে বুঝানো ।

সচেতনতা বৃদ্ধিঃ দেশের মানুষ অসচেতন হওয়ার কারণে অনেকেই এই বিষয়টার সুযোগ নিয়ে থাকে । এতে করে তাদের

মতাধিকার ক্ষুন্ন হয় । তাই এই সুযোগ যাতে কেউ নিতে না পারে সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে।

আইনের সঠিক প্রযোগঃ কেউ যদি অন্যের গণতন্ত্র নষ্ট করার চেষ্টা করে তবে তাকে আইনের আওয়াতায় আনতে হবে । এবং

সঠিক ভাবে ভোটাধিকার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

পরিশেষে বলা যায় একটি দেশের জন্য গণতন্ত্র অনেক গুরুত্ব পূর্ণ । কেননা এই সরকার ব্যবস্থায় সকল ক্ষমতা জনগণের হাতেই

থাকে। এই দিক দিয়ে জনগণ অনেক উপকৃত হয় । তাই আমাদের দেশে যাতে গণতন্ত্র সঠিক ভাবে প্রয়োগ হয় সেই বিষয়টিও

মাথায় রাখতে হবে। এবং আমাদের মাঝে সচেতনতা বাড়াইতে হবে।

গণতন্ত্র
গণতন্ত্র

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.